২০২১ সালের মধ্যে সবাই বিদ্যুৎ পাবে : জ্বালানি উপদেষ্টা

image_200912.hasibnp_1342520968_1-toufiq-e-elahi20120716180508দেশের সব মানুষ ২০২১ সালের মধ্যে বিদ্যুৎ পাবে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রীর জ্বালানি উপদেষ্টা ড. তৌফিক-ই ইলাহী চৌধুরী। রাজধানীর বিদ্যুৎ ভবনে শুক্রবার এক অনুষ্ঠান শেষে তিনি সাংবাদিকদের
এ কথা বলেন।
বিদ্যুৎ জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে আয়োজিত দুই দিনব্যাপী কর্মশালার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তৌফিক-ই ইলাহী প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন।
তৌফিক-ই ইলাহী বলেন, ‘বর্তমানে দেশের ৭০ ভাগেরও বেশি মানুষ বিদ্যুতের আওতায় এসেছে। প্রতিনিয়ত বিদ্যুতের চাহিদা বাড়ছে। এ চাহিদা পূরণের জন্য সরকার চেষ্টা করে যাচ্ছে। প্রতি মাসে দেড় লাখের মতো বিদ্যুৎ সংযোগ দেয়া হচ্ছে। এর অধিকাংশই গ্রাম এলাকায়।’
তৌফিক বলেন, ‘বেশি গরমে এবং সেচে বিদ্যুৎ চাহিদা বেড়ে ৮ হাজার থেকে সাড়ে ৮ হাজার মেগাওয়াটে পৌঁছাবে। এ পরিমাণ বিদ্যুৎ উৎপাদনে আমরা চেষ্টা করছি। তারপরও ত্রুটি হতে পারে। সবার কাছে অনুরোধ রাখবো ছোট খাটো সমস্যাকে যেন বড় করে না দেখা হয়।’
বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর বিষয়ে তিনি বলেন, ‘বিদ্যুতের দামের বিষয়টি দেখে বিইআরসি (বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন)। সেখানে তারা বিভিন্ন কোম্পানির বিদ্যুৎ-গ্যাসের দাম বৃদ্ধির প্রস্তাবের ওপর শুনানি করেছে। তারা যেমন সংশ্লিষ্ট কোম্পানির লাভ লোকসানের কথা চিন্তা করে আবার সাধারণ মানুষের কষ্টের কথাও ভাবে।’
তৌফিক-ই ইলাহী বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে এ খাতের উন্নয়ন হয়েছে। একসময় দিনে ৫-৭ ঘণ্টা লোডশেডিং হতো। এখন আর এভাবে লোডশেডিং হয় না। ক্রিকেট বিশ্বকাপ চলছে এ সময় কী লোডশেডিং হয়েছে? হয়নি।’
কর্মশালায় যোগদানকারীদের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘কর্মক্ষেত্রে আপনারা নেতা। আজকে বিদ্যুৎ, জ্বালানি ক্ষেত্রে সরকারের যে সফলতা তার ভাগিদার আপনারা। কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্যে পৌঁছতে আপনাদের আরো দক্ষ ও বিকশিত হতে হবে।’
বিদ্যুৎ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব ড. আহমদ কায়কাউসের সভাপতিত্বে উদ্বোধীন অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের মুখ্য সচিব মো. আবুল কালাম আজাদ, পেট্রোবাংলার চেয়ারম্যান ইশতিয়াক আহমেদ, বাংলাদেশ পাওয়ার ডেভেলপমেন্ট বোর্ডের (বিপিডিবি) চেয়ারম্যান শাহীনুল ইসলাম খান প্রমুখ।
কর্মশালার প্রথমদিনে আজ নবায়ণযোগ্য জ্বালানিতে বাংলাদেশের সুযোগ শীর্ষক নোট পেপার উপস্থাপন করেন বিদ্যুৎ সচিব মনোয়ার ইসলাম। দুই দিনব্যাপী এ কর্মশালা শনিবার বিকেলে শেষ হবে।

print

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*


*

x

Check Also

110

ঢাবির ‘গ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায় পাসের হার ১০.৯৮ শতাংশ

অফিসে আনুষ্ঠানিকভাবে এই ফলাফল প্রকাশ করেন। পরীক্ষার বিস্তারিত ফলাফল এবং ভর্তি প্রক্রিয়া সম্পর্কে বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইট admission.eis.du.ac.bd জানা যাবে। এছাড়া DU GA লিখে রোল নম্বর লিখে ১৬৩২১ নম্বরে send করে ফিরতি SMS এ ভর্তিচ্ছুরা তার ফলাফল জানতে পারবে। পাসকৃত শিক্ষার্থীরা আগামী ১৯ সে‌প্টেম্বর হতে ১ অক্টোবর পর্যন্ত ভর্তি পরীক্ষার ওয়েবসাইটে পছন্দ তালিকা পূরণ করতে পারবে। এর আগে গত ১৪ সেপ্টেম্বর (শুক্রবার) ‘গ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। ওই দিন বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস ও ক্যাম্পাসের বাইরের মোট ৫৪টি কেন্দ্রে ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। বাইরের কেন্দ্রগুলো হলো বিশ্ববিদ্যালয়ের লেদার ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড টেকনোলজি ইনস্টিটিউ এবং বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় স্কুল ও কলেজ। ‘গ’ ইউনিটের অধীনে আসন ...

110

ঢাবির ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষে ‘গ’ ইউনিটে ভর্তি পরীক্ষার ফলাফল জানবেন যেভাবে

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষে ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদভুক্ত ‘গ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষার ফল প্রকাশিত হয়েছে। ১৭ সেপ্টেম্বর বেলা ১১টায় দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনের কেন্দ্রীয় ভর্তি অফিসে আনুষ্ঠানিকভাবে ফল ঘোষণা করেন উপাচার্য অধ্যাপক ড. আখতারুজ্জামান। এবার ‘গ’ ইউনিটে পাসের হার ১০ দশমিক ৯৮ ভাগ। চলুন জেনে নেওয়া যাক কিভাবে জানা যাবে এই ফলাফল… মোবাইল থেকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গ ইউনিটের ফলাফল দেখার পদ্ধতিঃ যেকোনো মোবাইল অপারেটর থেকে DU স্পেস দিয়ে GA স্পেস দিয়ে Roll Number টাইপ করে ১৬৩২১ নম্বরে সেন্ড করলে ফিরতি এসএমএস-এ ফলাফল জানতে পারবেন। অনলাইনে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গ ইউনিটের ফলাফল দেখার পদ্ধতিঃ অনলাইনে ফলাফল দেখতে http://admission.eis.du.ac.bd ঠিকানায় আপনার উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষার রোল ...

Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com