পর্যাপ্ত ফল ও সবজি না খেলে যা হয়

সুস্থভাবে বেঁচে থাকার জন্য প্রতিদিন পর্যাপ্ত পুষ্টি, ভিটামিন ও মিনারেল দরকার। আপনার যদি চলাফেরা করা বা কাজ করার মতো শক্তি না থাকে তাহলে আপনি সুস্থভাবে বেঁচে থাকবেন কী করে। এজন্য চাই পর্যাপ্ত পরিমাণে ফলমূল ও সবজি খাওয়া।

আমাদের বর্তমান প্রজন্ম বাইরের তৈলাক্ত খাবার বা জাঙ্ক ফুড খেতে বেশি পছন্দ করে। কিন্তু এটা ভুলে গেলে হবে না যে, তাজা ফল ও সবজির কি পরিমাণ দরকার আমাদের শরীরের জন্য। অপর্যাপ্ত ফল বা সবজি খেলে অনেক শারীরিক সমস্যা দেখা দিতে পারে। আসুন জেনে নিই সেই সমস্যাগুলো সম্পর্কে।

ভিটামিনের অভাবঃ
পর্যাপ্ত পরিমাণে শাক সবজি এবং ফলমূল না খেলে আপনার শরীরে ভিটামিনের অভাব থেকে যেতে পারে। যা পরবর্তীতে বড় ধরনের রোগ আকারে দেখা দেয়। জন হপিংস ইউনিভার্সিটির একটি গবেষণায় বলা হয় যে, মাত্র ১১ শতাংশ প্রাপ্ত বয়স্ক মানুষ প্রতিদিন ভালোভাবে বাঁচার জন্য সবজি ও ফল খান।

মিনারেলের অভাবঃ
মিনারেল বা খনিজ আসে মূলত সবজি থেকে। আমরা যদি খাদ্য তালিকা থেকে সবজিকে এড়িয়ে চলি তাহলে শরীরে মিনারেলের ঘাটতি হতে পারে। ইউনিভার্সিটি অব টেক্সাসের একটি গবেষণায় বলা হয়েছে, যারা ফল ও সবজি থেকে দূরে থাকেন তাদের শারীরিক বৃদ্ধিও কম

খাবার হজমে সমস্যাঃ
বেশিরভাগ শাকসবজি খাবার হজম করতে সাহায্য করে। কারণ শক্ত আঁশযুক্ত খাবার সহজে হজম হতে চায় না। সবজি সেই খাবারগুলোকে হজম করতে সাহায্য করে। তাই প্রতিবেলার খাদ্য তালিকায় শাকসবজি রাখা উচিত। সকালে এবং দুপুরে খাওয়ার পরে ফল খাওয়া উচিত। সকালে নাস্তার সঙ্গে ফলের জুস খুবই উপাদেয় খাবার।

ক্যান্সারের সেল বৃদ্ধিঃ
তাজা শাকসবজি এবং ফলমূল ক্যান্সারের সেল ধ্বংস করতে সহায়তা করে। কিন্তু আপনি যখন এই শাকসবজি এবং ফলমূল থেকে দূরে থাকেন তখন আপনার শরীরে ক্যান্সারের সেল বা কোষ বাসা বাধতে পারে।

ওজন বৃদ্ধিঃ
শাকসবজি না খেয়ে শুধুমাত্র শক্ত আঁশ জাতীয় খাবার খেলে আপনার ওজন বেড়ে যাবে তর তর করে। এছাড়া তৈলাক্ত খাবার বা জাঙ্ক ফুডের কারণেও ওজন বৃদ্ধি পায়। তাই ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখতে বেশি করে শাকসবজি এবং ফলমূল খান।

রক্তচাপ বৃদ্ধিঃ
তৈলাক্ত বা জাঙ্ক ফুড আপনার রক্তচাপের মাত্রা নিয়ন্ত্রণে রাখে না। বরং বেশির ভাগ ক্ষেত্রে এটি রক্তচাপ বাড়িয়ে দেয়। রক্তচাপের মাত্রা ঠিক রাখতে চাইলে শাকসবজি এবং ফলমূল খেতে হবে।

হৃদরোগের সম্ভাবনাঃ
অতিরিক্ত মাংস প্রিয়তা ভালো নয়। এতে হৃদরোগের সম্ভাবনা বেড়ে যায়। মৃত্যু ঝুঁকিও বেড়ে যায়। বুকে ব্যথা অনুভূত হয়। পর্যাপ্ত পরিমাণ সবজি এবং ফলমূল খেলে তবেই ভালো থাকবে আপনার হৃদযন্ত্র।

মানসিক সমস্যাঃ
অপর্যাপ্ত সবজি এবং ফল খাওয়ার ফলে যে শুধু শারীরিক সমস্যা হতে পারে এমনটা নয়। এর কারণে মানসিক সমস্যাও হতে পারে। যেমন দুশ্চিন্তা। হ্যাঁ, পর্যাপ্ত পরিমাণ সবজি এবং ফলমূল না খেলে আপনার দুশ্চিন্তার পরিমাণ বৃদ্ধি হতে পারে।

সবার সব ধরনের সবজি বা ফল খাওয়া উচিত নয়। এছাড়া বয়স ভেদে তালিকাও ভিন্ন হওয়া উচিত। তাই অবশ্যই ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী আপনার সবজি এবং ফল খাওয়ার তালিকা তৈরি করুন।

print

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*


*

x

Check Also

২২ ঘণ্টা রোজা রাখবে যে দেশের মুসলমান

২২ ঘণ্টা রোজা রাখবে-  শুরু হচ্ছে ইসলাম ধর্মাবলম্বীদের পবিত্র মাস ‘মাহে রমজান’। একেক দেশে রোজা রাখার সময়ও কিন্তু ভিন্ন। কখনো কী ভেবেছেন পৃথিবীর অপর প্রান্তের দেশগুলোতে রোজা রাখার সময় কীরকম। ইউরোপের ছোট্ট একটি দ্বীপ রাষ্ট্র আইসল্যান্ডের কথা বলি। যেখানে দিনের মধ্যে বাইশ ঘন্টাই দিন। নিউইয়র্ক টাইমসের এক প্রতিবেদন অনুযায়ী সে দেশটির মুসলিম নাগরিকদের এবার ২২ঘন্টাই রোজা রাখতে হবে। প্রায় একহাজার মুসলমানের একধরণের অসাধ্যই সাধন করতে হবে এমন চমকপ্রদ তথ্যই বেরিয়ে এসেছে প্রতিবেদনটি প্রকাশের পরপর। এরফলে খাওয়াদাওয়া ও বিশ্রাম বাবদ কেবলমাত্র দুই ঘন্টাই সময় পাবে এবার আইসল্যান্ডের নাগরিকরা। সূর্যোদয় থেকে শুরু করে সূর্যাস্ত পর্যন্ত পানাহার থেকে বিরত থাকার কারণে এ মাসে ...

রোজদারদের জন্য সারাদিন ভালো থাকতে সেহেরিতে কী খাবেন আর কী খাবেন না

সারাদিন ভালো থাকতে- রোজদারদের জন্য সেহেরী ও ইফতার ইবাদতের মতো। অনেকেই মনে করেন সেহেরী ও ইফতারে ভারী ধরনের খাবার খাওয়া উচিত। কিন্তু সব ধরনের ভারী খাবার রোজদারের জন্য স্বাস্থ্যকর নয়। সেহেরীতে এমন সময় খাওয়া হয় যখন বেশি ক্ষুধা অনুভূত হয় না। এই সময় এমন খাবার খাওয়া উচিত যাতে সারাদিনের শক্তি পাওয়া যায়। চিকিৎসকদের মতে এই সময়ে খুব সাধারণ খাওয়া উচিত। সেই সঙ্গে পেটও যাতে খুব ভরা না লাগে সেদিকে লক্ষ্য রাখা উচিত। রুটি, ভাত এবং আলু-এই খাবারগুলোতে পর্যাপ্ত পরিমান কার্বোহাইড্রেট থাকে যা হজম হতে অনেক সময় লাগে এবং কর্মশক্তিও দীর্ঘক্ষণ ধরে রাখতে সাহায্য করে। এ কারণে সেহেরিতে এইসব খাবার খেতে পারেন। ...

Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com