চলছে নিষেধাজ্ঞা; ইলিশ পেতে অপেক্ষা করতে হবে টানা ২২ দিন

mm-1

ইলিশের সহনশীল উৎপাদন বজায় রাখার লক্ষ্যে ইলিশ ধরায় সরকারের দেওয়া নিষেধাজ্ঞা শুরু হচ্ছে আজ রোববার থেকে। আজ থেকে ইলিশ ধরা মাছ ধরা, পরিবহন, মজুদ, বাজারজাতকরণ ও বিক্রি নিষিদ্ধ করেছে সরকার। প্রধান প্রজনন মৌসুমে ইলিশ মাছ সংরক্ষণে আজ ১ অক্টোবর থেকে আগামী ২২ অক্টোবর পর্যন্ত এই নিষেধাজ্ঞা বহাল থাকবে।

মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের উপ-সচিব হামিদুর রহমান স্বাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপনে এ আদেশ জারি করা হয়।

এই আদেশ অমান্য করে ইলিশ মাছ আহরণ ও বিক্রি করলে ১ বছর থেকে সর্বোচ্চ ২ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড বা ৫ হাজার টাকা পর্যন্ত জরিমানা বা উভয় দণ্ডিত হতে পারেন।
চান্দ্রমাসের ভিত্তিতে প্রধান প্রজনন মৌসুম ধরে আশ্বিন মাসের প্রথম চাঁদের পূর্ণিমার দিন এবং এর আগে চার ও পরের ১৭ দিনসহ মোট ২২ দিন ইলিশ ধরা বন্ধ করেছে সরকার।

ফলে টানা ২২ দিন ইলিশ ধরা ও পরিবহনসহ সব ধরণের প্রক্রিয়াজতকরণ এবং বেচাকেনা নিষিদ্ধ থাকবে। ইলিশ পেতে অপেক্ষা করতে হবে এই ২২ দিন। শনিবার রাত ১২টার পর এই নিষেধাজ্ঞা বলবৎ হয়ছে । আর তাই রাজধানীতে ইলিশের দাম গত কয়েকদিনের তুলনায় শনিবার রাতেই দাম আরও কমে যায় । ৭০০ থেকে ৮০০ গ্রাম ওজনের ইলিশ বিক্রি হয়েছে ৫০০-৫৫০ টাকা দরে।

শনিবার রাজধানীর কারওয়ান বাজার, হাতিরপুল ও সেগুনবাগিচা বাজারসহ কয়েকটি বাজার ঘুরে এমন চিত্র দেখা গেছে।

নিয়ম অনুযায়ী আজ রোববার থেকে টানা ২২ দিন বাজারে নিষিদ্ধ হচ্ছে ইলিশ। সরকার নির্ধারিত এ সময়ের পর আবারো দেশের নদীগুলোতে ইলিশ মাছ ধরতে পারবে জেলেরা। তবে রাজধানীর ব্যবসায়ীরা বলছেন, যারা শুধু ইলিশের ব্যবসা করে তাদের জন্য এই সময়টা একটু খারাপ যাবে।

চাঁদপুর, লক্ষ্মীপুর, নোয়াখালী, ফেনী, চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, বরিশাল, ভোলা, পটুয়াখালী, বরগুনা, পিরোজপুর, ঝালকাঠি, বাগেরহাট, শরীয়তপুর, ব্রাহ্মণবাড়িয়া, ঢাকা, মাদারীপুর, ফরিদপুর, রাজবাড়ী, জামালপুর, নারায়ণগঞ্জ, নরসিংদী, মানিকগঞ্জ, মুন্সীগঞ্জ, খুলনা, কুষ্টিয়া ও রাজশাহী এই ২৭টি জেলার সব নদ-নদীতে ইলিশ মাছ ধরা বন্ধ থাকবে বলে জানানো হয়েছে প্রজ্ঞাপনে।

এছাড়াও মৎস্য মন্ত্রণালয় দেশের নদনদীগুলোর ৭ হাজার বর্গকিলোমিটার এলাকাকে ইলিশের প্রজননক্ষেত্র হিসেবে ঘোষণা করেছে। ভোলা জেলার মনপুরা, ঢলচর, নোয়াখালী জেলার হাতিয়ার কালিরচর ও মৌলভীর চরকে ইলিশের বিশেষ প্রজনন এলাকা হিসেবে বিবেচনা করা হয়।

চট্টগ্রামের মীরসরাই উপজেলার শাহের খালী হতে হাইতকান্দি পয়েন্ট, ভোলার তজুমুদ্দিন উপজেলার উত্তর তজুমুদ্দিন হতে পশ্চিমে সৈয়দ আওলিয়া পয়েন্ট, পটুয়াখালীর কলাপাড়া উপজেলার লতা চাপালি পয়েন্ট এবং কক্সবাজারের কুতুবদিয়া হতে গণ্ডামারা পয়েন্ট প্রধান প্রজনন ক্ষেত্র।

প্রসঙ্গত, ইলিশের স্বাভাবিক উৎপাদন বাড়াতে প্রতিবছরের ন্যায় এবারও শুরু হচ্ছে ২২ দিনব্যাপী ‘মা-ইলিশ সংরক্ষণ অভিযান’। এর আওতায় আগামী ১ থেকে ২২ অক্টোবর পর্যন্ত প্রায় ৭ হাজার বর্গ কিলোমিটার এলাকা ইলিশ ধরা নিষিদ্ধ থাকবে। এছাড়া সারা দেশেই ইলিশ বিক্রি ও সংরক্ষণ নিষিদ্ধ থাকবে।

print

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*


*

x

Check Also

dss74

প্রকৃত গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠায় সকলকে এগিয়ে আসতে হবে’

বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া বলেছেন, বর্তমানে দেশে জনগণের না আছে নাগরিক স্বাধীনতা না আছে মৌলিক অধিকার। সুতরাং এ নৈরাজ্যকর দুঃশাসনের ছোবল থেকে মুক্তি পেতে এ মুহূর্তে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে প্রকৃত গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠায় সকলকে এগিয়ে আসতে হবে। দেশের মানুষের জীবন ও সম্পদের নিরাপত্তায় জনগণের মিলিত কণ্ঠে আওয়াজ তুলে বর্তমান অপশাসনের অবসান ঘটাতে হবে। আগামীকাল রবিবার আন্তর্জাতিক মানবাধিকার দিবস উপলক্ষ্যে গণমাধ্যমে দেওয়া এক বিবৃতিতে বেগম জিয়া এসব বলেন। তিনি বলেন, বাংলাদেশে এখন ভয়াবহ দুঃসময় চলছে। এদেশে শুধু বিরোধীদলের নেতাকর্মীরাই শুধু নয়, সাংবাদিক, মানবাধিকার কর্মী, ছাত্র, শিক্ষক, শ্রমিক, নারী, শিশুসহ কারোই কোনো নিরাপত্তা নেই। এদের অধিকাংশই গুম, গুপ্ত হত্যা এবং বিচার বহির্ভূত হত্যার শিকার হচ্ছেন। ...

image-60750

ভাঙল বিএনপির আরেক শরিক

আবার ভাঙল বিএনপির নেতৃত্বাধীন ২০ দলের একটি শরিক দল। জমিয়তে উলামায় ইসলাম নামের দলটির নির্বাহী সভাপতি ও সাবেক সংসদ সদস্য মুফতি ওয়াক্কাছের নির্বাহী সদস্যপদ স্থগিত করেছে দলের একটি পক্ষ। দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গ ও সুরক্ষা কমিটি নামে অসাংবিধানিক কমিটি করার অভিযোগে এ সিদ্ধান্ত নেয়ার কথা জানিয়েছেন ওয়াক্কাসকে বহিস্কার করা নেতারা। শনিবার দলের আমেলা (নির্বাহী) সদস্যদের বৈঠকের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী মূফতি ওয়াক্কাসের সদস্যপদ স্থগিত করা হয়েছে বলে দাবি করা হচ্ছে। এরমধ্য দিয়ে ভাঙন শুরু হল দলটির। যদিও ওয়াক্কাস অংশের নেতারা এমন সিদ্ধান্তকে অসাংবিধানিক দাবি করছেন। তারা বলছেন, যে বৈঠকের কথা বলা হচ্ছে সেখানে ২৬ জনের মত উপস্থিত ছিলেন। অথচ দলের আমেলা (নির্বাহী) সদস্য ...

Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com