পাহাড়েই সন্তান প্রসব রোহিঙ্গা নারীর!

পাহাড়েই সন্তান প্রসব রোহিঙ্গা নারীর! _

 

কথায় বলে বাস্তবতা কল্পনার চেয়েও অনেক বেশি বিস্ময়কর হয়ে থাকে। এই প্রবাদ যে কতটা সত্য তা নতুন করে আবিষ্কার করলেন মিয়ানমারের এক নারী।

গত শনিবার রাতের কথা চিরস্মরণীয় হয়ে থাকবে এক রোহিঙ্গা নারীর। সেই রাতে যে বাংলাদেশ-মিয়ানমারের ওয়ালিদং পাহাড়ে গভীর অরণ্যে একটি সন্তানের জন্ম দিয়েছেন সর্বস্ব হারানো এই নারী। মা হওয়ার স্মৃতির সঙ্গে তার রইল ভয় মিশ্রিত এক অদ্ভূত আনন্দও। ঘটনাটি ঘটেছে কক্সবাজার জেলার উখিয়ার প্রধান নদী রেজু মিয়ানমারের ওয়ালিদং পাহাড়ে।

গত শুক্রবার রাতে মিয়ানমারে সহিংসতার ঘটনায় রাখাইন রাজ্যে উত্তেজনা সৃষ্টি হলে দলে দলে রোহিঙ্গা চলে আসতে থাকে বাংলাদেশে সীমান্তের দিকে। তাঁদের সাথে চলে আসে মিয়ানমারের মিজ্জাইলিপাড়া এলাকার বাসিন্দা নুর হাকিমের স্ত্রী হাছিনা বেগম(২০)। গত এক বছর পূর্বে নুর হাকিমের সাথে বিয়ে হয় তাঁর। গর্বে আসে নতুন অতিথি। ওই নারী সেনা ও রাখাইনের ভয়ে প্রতিবেশীদের সাথে পাহাড়ে আশ্রয় নিলেও স্বামীর কোন খবর পাননি তিনি।

শনিবার গভীর রাতে হঠাৎ প্রসব যন্ত্রণায় কাতরাতে শুরু করেন হাছিনা বেগম। ২০ মিনিটের প্রসব যন্ত্রণার পর ভূমিষ্ট হয় একটি ফুটফুটে নবজাতক শিশু। তারও একদিন পর রবিবার ঘুমধুম ইউনিয়নের রেজু আমতলি সীমান্ত পয়েন্ট দিয়ে বাংলাদেশে অনুপ্রবেশ করেন তিনি। তাঁর সাথে এখন কেউ নেই শুধুমাত্র এক প্রতিবেশী নারী ছাড়া। সোমবার সকাল ১০টায় তাঁর সাথে দেখা হয় এ প্রতিবেদকের। রেজু আমতলি সীমান্ত এলাকার একটি বাড়িতে ২ দিনের নবজাতককে নিয়ে আশ্রয় নিয়েছে হাছিনা। সুযোগ বুঝে কুতুপালং অথবা বালুখালী ক্যাম্পে চলে যেতে পারে বলে জানান তিনি।

তবে সর্বস্ব ত্যাগ করে দেশ ছেড়ে বিদেশে চলে আসলেও সেই দুঃখ বেদনা ভুলে গেছে তাঁর ভূমিষ্ঠ হওয়া সন্তানের চেহারা দেখে। এখন শুধু স্বামীর চিন্তায় চিন্তিত তিনি। ৪ দিন ধরে তার কোনো খোঁজ নেই। তাঁর আশা স্বামী বেঁচে আছে। ফিরে আসবে তাঁর কাছে। এই প্রত্যাশা নিয়ে নবজাতককে বুকে আঁকড়ে ধরে কান্নায় ভেঙে পড়লে হাছিনা।

print

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*


*

x

Check Also

Asaduzzaman-3

দেশব্যাপী সাংস্কৃতিক উৎসব ২০ ও ২১ জুলাই

  দেশব্যাপী সাংস্কৃতিক কর্মকান্ড আরো বিকশিত এবং কিশোর-তরুণ সমাজসহ সর্বস্তরের জনগণকে বাংলাদেশের নিজস্ব সংস্কৃতির প্রতি আকৃষ্ট করতে আগামী ২০ ও ২১ জুলাই সারাদেশে সাংস্কৃতিক উৎসব করবে সরকার। জেলা প্রশাসন, জেলা শিল্পকলা একাডেমি এবং জেলা তথ্য অফিসের সহযোগিতায় সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয় এ উৎসব উদযাপন করবে। বুধবার সচিবালয়ে তথ্য অধিদফতরের (পিআউডি) সম্মেলন কক্ষে সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর সংবাদ সম্মেলনে একথা জানান। সংবাদ সম্মেলনে তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু, তথ্য সচিব আবদুল মালেক, সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ে সচিব মো. নাসির উদ্দিন আহমেদ ও প্রধান তথ্য কর্মকর্তা কামরুন নাহার উপস্থিত ছিলেন। আসাদুজ্জামান নূর জানান, সাংস্কৃতিক উৎসব পালনে প্রতিটি জেলায় জেলা প্রশাসকের সভাপতিত্বে একটি ‘সাংস্কৃতিক উৎসব’ ...

185231pm2-kalerkantho-

আসুন, অন্তত একটি করে বনজ, ফলদ ও ভেষজ গাছের চারা রোপণ করি

  বৃক্ষরোপণ করে বাংলাদেশকে একটি সমৃদ্ধশালী দেশ হিসেবে প্রতিষ্ঠা করার আহবান জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, আসুন, আমরা প্রত্যেকে অন্তত একটি করে বনজ, ফলদ ও ভেষজ গাছের চারা রোপণ করি এবং বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা নির্মাণে এগিয়ে যাই। বুধবার বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে বিশ্ব পরিবেশ দিবস ও পরিবেশ মেলা, ২০১৮ এবং জাতীয় বৃক্ষরোপণ অভিযান ও বৃক্ষ মেলা ২০১৮ এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির ভাষণে প্রধানমন্ত্রী একথা বলেন। প্রধানমন্ত্রী বলেন, সড়ক, অফিস-আদালত, সরকারি ভবন, পার্ক, নদীর তীর, লেক, খেলার মাঠ, কবরস্থানসহ পতিত, পরিত্যক্ত জমিতে, এমনকি বাড়ির ছাদে যথাযথ কৌশল অবলম্বন করে সবুজ এলাকার সংখ্যা বাড়ানো যায়। প্রধানমন্ত্রী অনুষ্ঠানে, পরিবেশ পদক ২০১৮ এর জন্য ...

Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com